পবিত্র কুরআন » বাংলা » সূরা আন-নাযেআত

বাংলা

সূরা আন-নাযেআত - Verses Number 40
عَمَّ يَتَسَاءَلُونَ ( 1 ) আন-নাযেআত - Ayaa 1
তারা পরস্পরে কি বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে?
عَنِ النَّبَإِ الْعَظِيمِ ( 2 ) আন-নাযেআত - Ayaa 2
মহা সংবাদ সম্পর্কে,
الَّذِي هُمْ فِيهِ مُخْتَلِفُونَ ( 3 ) আন-নাযেআত - Ayaa 3
যে সম্পর্কে তারা মতানৈক্য করে।
كَلَّا سَيَعْلَمُونَ ( 4 ) আন-নাযেআত - Ayaa 4
না, সত্ত্বরই তারা জানতে পারবে,
ثُمَّ كَلَّا سَيَعْلَمُونَ ( 5 ) আন-নাযেআত - Ayaa 5
অতঃপর না, সত্বর তারা জানতে পারবে।
أَلَمْ نَجْعَلِ الْأَرْضَ مِهَادًا ( 6 ) আন-নাযেআত - Ayaa 6
আমি কি করিনি ভূমিকে বিছানা
وَالْجِبَالَ أَوْتَادًا ( 7 ) আন-নাযেআত - Ayaa 7
এবং পর্বতমালাকে পেরেক?
وَخَلَقْنَاكُمْ أَزْوَاجًا ( 8 ) আন-নাযেআত - Ayaa 8
আমি তোমাদেরকে জোড়া জোড়া সৃষ্টি করেছি,
وَجَعَلْنَا نَوْمَكُمْ سُبَاتًا ( 9 ) আন-নাযেআত - Ayaa 9
তোমাদের নিদ্রাকে করেছি ক্লান্তি দূরকারী,
وَجَعَلْنَا اللَّيْلَ لِبَاسًا ( 10 ) আন-নাযেআত - Ayaa 10
রাত্রিকে করেছি আবরণ।
وَجَعَلْنَا النَّهَارَ مَعَاشًا ( 11 ) আন-নাযেআত - Ayaa 11
দিনকে করেছি জীবিকা অর্জনের সময়,
وَبَنَيْنَا فَوْقَكُمْ سَبْعًا شِدَادًا ( 12 ) আন-নাযেআত - Ayaa 12
নির্মান করেছি তোমাদের মাথার উপর মজবুত সপ্ত-আকাশ।
وَجَعَلْنَا سِرَاجًا وَهَّاجًا ( 13 ) আন-নাযেআত - Ayaa 13
এবং একটি উজ্জ্বল প্রদীপ সৃষ্টি করেছি।
وَأَنزَلْنَا مِنَ الْمُعْصِرَاتِ مَاءً ثَجَّاجًا ( 14 ) আন-নাযেআত - Ayaa 14
আমি জলধর মেঘমালা থেকে প্রচুর বৃষ্টিপাত করি,
لِّنُخْرِجَ بِهِ حَبًّا وَنَبَاتًا ( 15 ) আন-নাযেআত - Ayaa 15
যাতে তদ্দ্বারা উৎপন্ন করি শস্য, উদ্ভিদ।
وَجَنَّاتٍ أَلْفَافًا ( 16 ) আন-নাযেআত - Ayaa 16
ও পাতাঘন উদ্যান।
إِنَّ يَوْمَ الْفَصْلِ كَانَ مِيقَاتًا ( 17 ) আন-নাযেআত - Ayaa 17
নিশ্চয় বিচার দিবস নির্ধারিত রয়েছে।
يَوْمَ يُنفَخُ فِي الصُّورِ فَتَأْتُونَ أَفْوَاجًا ( 18 ) আন-নাযেআত - Ayaa 18
যেদিন শিংগায় ফুঁক দেয়া হবে, তখন তোমরা দলে দলে সমাগত হবে।
وَفُتِحَتِ السَّمَاءُ فَكَانَتْ أَبْوَابًا ( 19 ) আন-নাযেআত - Ayaa 19
আকাশ বিদীর্ণ হয়ে; তাতে বহু দরজা সৃষ্টি হবে।
وَسُيِّرَتِ الْجِبَالُ فَكَانَتْ سَرَابًا ( 20 ) আন-নাযেআত - Ayaa 20
এবং পর্বতমালা চালিত হয়ে মরীচিকা হয়ে যাবে।
إِنَّ جَهَنَّمَ كَانَتْ مِرْصَادًا ( 21 ) আন-নাযেআত - Ayaa 21
নিশ্চয় জাহান্নাম প্রতীক্ষায় থাকবে,
لِّلطَّاغِينَ مَآبًا ( 22 ) আন-নাযেআত - Ayaa 22
সীমালংঘনকারীদের আশ্রয়স্থলরূপে।
لَّابِثِينَ فِيهَا أَحْقَابًا ( 23 ) আন-নাযেআত - Ayaa 23
তারা তথায় শতাব্দীর পর শতাব্দী অবস্থান করবে।
لَّا يَذُوقُونَ فِيهَا بَرْدًا وَلَا شَرَابًا ( 24 ) আন-নাযেআত - Ayaa 24
তথায় তারা কোন শীতল এবং পানীয় আস্বাদন করবে না;
إِلَّا حَمِيمًا وَغَسَّاقًا ( 25 ) আন-নাযেআত - Ayaa 25
কিন্তু ফুটন্ত পানি ও পূঁজ পাবে।
جَزَاءً وِفَاقًا ( 26 ) আন-নাযেআত - Ayaa 26
পরিপূর্ণ প্রতিফল হিসেবে।
إِنَّهُمْ كَانُوا لَا يَرْجُونَ حِسَابًا ( 27 ) আন-নাযেআত - Ayaa 27
নিশ্চয় তারা হিসাব-নিকাশ আশা করত না।
وَكَذَّبُوا بِآيَاتِنَا كِذَّابًا ( 28 ) আন-নাযেআত - Ayaa 28
এবং আমার আয়াতসমূহে পুরোপুরি মিথ্যারোপ করত।
وَكُلَّ شَيْءٍ أَحْصَيْنَاهُ كِتَابًا ( 29 ) আন-নাযেআত - Ayaa 29
আমি সবকিছুই লিপিবদ্ধ করে সংরক্ষিত করেছি।
فَذُوقُوا فَلَن نَّزِيدَكُمْ إِلَّا عَذَابًا ( 30 ) আন-নাযেআত - Ayaa 30
অতএব, তোমরা আস্বাদন কর, আমি কেবল তোমাদের শাস্তিই বৃদ্ধি করব।
إِنَّ لِلْمُتَّقِينَ مَفَازًا ( 31 ) আন-নাযেআত - Ayaa 31
পরহেযগারদের জন্যে রয়েছে সাফল্য।
حَدَائِقَ وَأَعْنَابًا ( 32 ) আন-নাযেআত - Ayaa 32
উদ্যান, আঙ্গুর,
وَكَوَاعِبَ أَتْرَابًا ( 33 ) আন-নাযেআত - Ayaa 33
সমবয়স্কা, পূর্ণযৌবনা তরুণী।
وَكَأْسًا دِهَاقًا ( 34 ) আন-নাযেআত - Ayaa 34
এবং পূর্ণ পানপাত্র।
لَّا يَسْمَعُونَ فِيهَا لَغْوًا وَلَا كِذَّابًا ( 35 ) আন-নাযেআত - Ayaa 35
তারা তথায় অসার ও মিথ্যা বাক্য শুনবে না।
جَزَاءً مِّن رَّبِّكَ عَطَاءً حِسَابًا ( 36 ) আন-নাযেআত - Ayaa 36
এটা আপনার পালনকর্তার তরফ থেকে যথোচিত দান,
رَّبِّ السَّمَاوَاتِ وَالْأَرْضِ وَمَا بَيْنَهُمَا الرَّحْمَٰنِ ۖ لَا يَمْلِكُونَ مِنْهُ خِطَابًا ( 37 ) আন-নাযেআত - Ayaa 37
যিনি নভোমন্ডল, ভূমন্ডল ও এতদুভয়ের মধ্যবর্তী সবকিছুর পালনকর্তা, দয়াময়, কেউ তাঁর সাথে কথার অধিকারী হবে না।
يَوْمَ يَقُومُ الرُّوحُ وَالْمَلَائِكَةُ صَفًّا ۖ لَّا يَتَكَلَّمُونَ إِلَّا مَنْ أَذِنَ لَهُ الرَّحْمَٰنُ وَقَالَ صَوَابًا ( 38 ) আন-নাযেআত - Ayaa 38
যেদিন রূহ ও ফেরেশতাগণ সারিবদ্ধভাবে দাঁড়াবে। দয়াময় আল্লাহ যাকে অনুমতি দিবেন, সে ব্যতিত কেউ কথা বলতে পারবে না এবং সে সত্যকথা বলবে।
ذَٰلِكَ الْيَوْمُ الْحَقُّ ۖ فَمَن شَاءَ اتَّخَذَ إِلَىٰ رَبِّهِ مَآبًا ( 39 ) আন-নাযেআত - Ayaa 39
এই দিবস সত্য। অতঃপর যার ইচ্ছা, সে তার পালনকর্তার কাছে ঠিকানা তৈরী করুক।
إِنَّا أَنذَرْنَاكُمْ عَذَابًا قَرِيبًا يَوْمَ يَنظُرُ الْمَرْءُ مَا قَدَّمَتْ يَدَاهُ وَيَقُولُ الْكَافِرُ يَا لَيْتَنِي كُنتُ تُرَابًا ( 40 ) আন-নাযেআত - Ayaa 40
আমি তোমাদেরকে আসন্ন শাস্তি সম্পর্কে সতর্ক করলাম, যেদিন মানুষ প্রত্যেক্ষ করবে যা সে সামনে প্রেরণ করেছে এবং কাফের বলবেঃ হায়, আফসোস-আমি যদি মাটি হয়ে যেতাম।

বই

  • মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সামাজিক বিপ্লবের স্বরূপমুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সামাজিক বিপ্লবের স্বরূপ: একটি গুরুত্বপূর্ণ গ্রন্থ। সামাজিক পরিবর্তন সাধনে ও সমাজের প্রতিটি স্তরে কীভাবে ইসলামি মূল্যবোধের আধিপত্য প্রতিষ্টায় রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের আদর্শ ও পদ্ধতি চমৎকারভাবে উপস্থাপিত হয়েছে বক্ষ্যমাণ গ্রন্থে। ইসলাম প্রচারকদের জন্য এ বইটির অধ্যয়ন জরুরি বলে মনে করি।

    সংকলন : সিরাজুল ইসলাম আলী আকবর

    সম্পাদক : চৌধুরী আবুল কালাম আজাদ

    প্রকাশনায় : ইসলাম প্রচার ব্যুরো, রাবওয়াহ, রিয়াদ

    Source : http://www.islamhouse.com/p/252753

    Download :মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সামাজিক বিপ্লবের স্বরূপমুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সামাজিক বিপ্লবের স্বরূপ

  • তাঁদের মধ্যে মধুময় সম্পর্ক [নবী-পরিবার ও অবশিষ্ট সাহাবীগণ পরস্পর সহানুভূতিশীল]তাঁদের মধ্যে মধুময় সম্পর্ক: নবী-পরিবার ও অবশিষ্ট সাহাবীগণ পরস্পর সহানুভূতিশীল : উম্মাতের মধ্যে যে মতপার্থক্যের উৎপত্তি হয়েছে তা জানা ও প্রতিকার করা শরী‘আতের অন্যতম মহান উদ্দেশ্য। এটি একটি বৃহৎ বিষয়; যা উম্মতকে ক্ষত-বিক্ষত করে দিয়েছে। এই গবেষণায়, সাহাবায়ে কেরাম ও আলে বাইত -রাদিয়াল্লাহু ‘আনহুম- এর মাঝে যে মধুময় সম্পর্ক ছিল, তার প্রমাণাদি তুলে ধরা হয়েছে। তাদের মধ্যে যত যুদ্ধ-বিবাদই সংঘটিত হোক না কেন, তারা ছিল পরস্পর সহানুভূতিশীল ও দয়ালু। যদিও কোনো কোনো গল্পকার/ইতিহাসবেত্তা তা না জানার ভান করে থাকে, তবুও এ-কথাটি বাস্তব সত্য; তা এ-সব মিথ্যা গাল-গল্প ও অসার চিন্তাধারার বিরুদ্ধে স্বচ্ছ ও শুভ্র প্রমাণ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত থাকবে । এ-ধরনের ঐতিহাসিকদের মিথ্যা গাল-গল্প ও অসার ধ্যান-ধারনা-অনুমানকে কিছু প্রবৃত্তির অনুসারী, রাজনৈতিক সুবিধাবাদী ও ইসলামের শত্রুরা পুঁজি করেছে তাদের হীনস্বার্থ উদ্ধার এবং এই উম্মতের মধ্যে মতপার্থক্য ও মতবিরোধের শিকড় গ্রথিত করার জন্য।

    সংকলন : সালেহ ইবন আবদিল্লাহ আদ-দারওয়ীশ

    সম্পাদক : আবু বকর মুহাম্মাদ যাকারিয়া - মো: আব্দুল কাদের

    প্রকাশনায় : ইসলাম প্রচার ব্যুরো, রাবওয়াহ, রিয়াদ

    Source : http://www.islamhouse.com/p/334268

    Download :তাঁদের মধ্যে মধুময় সম্পর্ক [নবী-পরিবার ও অবশিষ্ট সাহাবীগণ পরস্পর সহানুভূতিশীল]তাঁদের মধ্যে মধুময় সম্পর্ক [নবী-পরিবার ও অবশিষ্ট সাহাবীগণ পরস্পর সহানুভূতিশীল]

  • বিশুদ্ধ পদ্ধতিতে উমরা করার নিয়মপ্রবন্ধটিতে উমরার বিশুদ্ধ পদ্ধতি তুলে ধরা হয়েছে। অর্থাৎ শরী‘আত বর্ণিত সঠিক পদ্ধতিতে একজন উমরাকারী মীকাত থেকে কীভাবে ইহরাম বাঁধবে, মক্কায় কাবার কাছে গিয়ে কি করবে, তাওয়াফ ও সাঈ কিভাবে সম্পন্ন করবে।

    সংকলন : আবু বকর মুহাম্মাদ যাকারিয়া

    প্রকাশনায় : ইসলাম প্রচার ব্যুরো, রাবওয়াহ, রিয়াদ

    Source : http://www.islamhouse.com/p/364810

    Download :বিশুদ্ধ পদ্ধতিতে উমরা করার নিয়মবিশুদ্ধ পদ্ধতিতে উমরা করার নিয়ম

  • সৎ মানুষের হৃদয়ে শয়তান প্রবেশের ধরণ ও প্রকৃতিপ্রত্যেক ব্যক্তির ঈমানের দৃঢ়তা, ইলামের গভীরতা ও ইবাদতে একাগ্রতা বিবেচনায় রেখে শয়তান তার উপর প্রভাব বিস্তার করার চেষ্টা করে, বক্ষ্যমান পুস্তিকায় এ সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে।

    সংকলন : আব্দুল্লাহ আল খাতির

    সম্পাদক : নুমান বিন আবুল বাশার

    অনুবাদক : আব্দুল্লাহ শহীদ আব্দুর রহমান

    প্রকাশনায় : ইসলাম প্রচার ব্যুরো, রাবওয়াহ, রিয়াদ

    Source : http://www.islamhouse.com/p/90659

    Download :সৎ মানুষের হৃদয়ে শয়তান প্রবেশের ধরণ ও প্রকৃতিসৎ মানুষের হৃদয়ে শয়তান প্রবেশের ধরণ ও প্রকৃতি

  • ধৈর্য কেন ও কীভাবেএ-গ্রন্থে কুরআন সুন্নাহর আলোকে ধৈর্যের হাকীকত, জীবনের নানা ক্ষেত্রে ধৈর্যধারণের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা, ধৈর্যের কারণ, পথ ও পদ্ধতিসমূহ সাবলীল ভাষায় আলোচনা করা হয়েছে।

    সংকলন : আব্দুল্লাহ শহীদ আব্দুর রহমান

    প্রকাশনায় : ইসলাম প্রচার ব্যুরো, রাবওয়াহ, রিয়াদ

    Source : http://www.islamhouse.com/p/270432

    Download :ধৈর্য কেন ও কীভাবেধৈর্য কেন ও কীভাবে

ভাষা

Choose সূরা

বই

Choose tafseer

Participate

Bookmark and Share